শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

রাষ্ট্রীয়ভাবে ধর্মীয় রাজনীতি নিষিদ্ধের প্রথম পদক্ষেপ এটি। ছাত্র জমিয়ত



ঢাবিতে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তকে আত্মঘাতি উল্লেখ করে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ এর নেতৃবৃন্দ বলেছেন, রাষ্ট্রীয়ভাবে ধর্মীয় রাজনীতি নিষিদ্ধের প্রথম পদক্ষেপ এটি।

সরকার ডাকসুর কাঁধে বন্দুক রেখে এদেশের মুসলিম তৌহিদী ছাত্র জনতার ঈমানের পরীক্ষা নিতে চাইছেন । যে দেশের ৯২ ভাগ মানুষ মুসলমান, যে দেশের রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম সে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠে এরকম অসাংবিধানিক ও অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত নিছক ডাকসুর অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্তই নয় বরং এর পিছনে রয়েছে আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে কুফর ও নাস্তিক্যবাদের দিকে ঠেলে দেওয়ার গভীর ষড়যন্ত্র । অবিলম্বে এ সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। অন্যথায় পরিণতি শুভ হবে না।

আজ বিকালে পল্টনস্থ দলীয় কার্যালয়ে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ (মুফতী ওয়াক্কাস) এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহি পরিষদের সাধারণ সভায় তারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, এ দেশের ছাত্র ও যুবসমাজের চরিত্র ও ঈমান ধ্বংস করার সব আয়োজন ও নানামুখী ষড়যন্ত্র অব্যাহত রয়েছে। সেকুলার শিক্ষাব্যবস্থার মোড়কে ডারইউনের বিবর্তনবাদের পাঠদান করে ছাত্রসমাজকে বিপথগামী ও নাস্তিকরূপে গড়ে তুলছে। আধিপত্যবাদী শক্তি দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নস্যাতের অপচেষ্টা করছে। এসব ষড়যন্ত্র ও অপতৎপরতার বিরুদ্ধে ছাত্রসমাজকে সাথে নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের সভাপতি তোফায়েল গাজালির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহসভাপতি শিব্বির আহমদ রাজী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদ সুহাইল আহমদ, সহসাধারণ সম্পাদক হাফেজ মুহাম্মদ, সাংগঠনিক সম্পাদক নিজাম উদ্দীন আল আদনান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ আহমদ, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ফযলে রাব্বি মাকসুদ, প্রচার সম্পাদক কে.এম খায়রুল ইসলাম, সাহিত্য সম্পাদক জাফর ইকবাল,দপ্তর সম্পাদক হাসান মোহাম্মদ শহীদ, নির্বাহি সদস্য অাবুল হাসান, মীম সালমান, মোশাররফ হাসাইন, আবুল হাসান, আতিকুল ইসলাম, শাকিল আহমদ, আল আমীন জুনায়েদ প্রমূখ।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য