শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

ডাক্তার সাহেবদের প্রতি প্রত্যাশা: এ বি এম আমীর উদ্দিন



কঠোর পরিশ্রম ও মেধার সমন্বয়ে একজন ডাক্তার তৈরি হন। একজন ডাক্তার উপযুক্ত সম্মানী পাবেন এটা তার অধিকার। কিন্তু আমরা কি দেখছি? একজন ডাক্তার অধিক পরিমাণ অর্থ উপার্জনের নেশায় নীতি নৈতিকতা বিসর্জন দিয়ে সরকারি পূর্ণদায়িত্ব আদায় না করে বিভিন্ন ক্লিনিকে রোগী দেখার নামে অর্থ উপার্জনে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। এই টেস্ট সেই টেস্ট করানো। যা রোগীর জন্য বাধ্যতামূল হয়েগেছে।


কোম্পানিগুলো ডাক্তার সাহেব নিয়ে ব্যস্ত। টেস্ট করানোর জন্য গেলে দেখবেন রেজিস্ট্রারে এন্ট্রি হচ্ছে। সময়মত কমিশনটা পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে ডাক্তার সাহেবের কাছে।
দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য সরকারি হাসপাতালে গেলে অকারণেই রেফার করা হয়, আবার প্রাইভেট ক্লিনিকে রোগী ভর্তি করা হলে সেই ডাক্তার সাহেবই এসে চিকিৎসা করে থাকেন। এর চেয়ে লজ্জা আর কি হতে পারে?

বর্তমানে ডেলিভারি মানেই সিজার। তাও হাসপাতালে নয় প্রাইভেট ক্লিনিকে। যে ডাক্তার সাহেব হাসপাতালে করতে অপারগতা প্রকাশ করে, তিনিই ক্লিনিকে অপারেশন করেন। জানি না ভবিষ্যতে আরো কতকিছু দেখতে হবে। আমরা হবো আরো কত অসহায়!!গরিব দেশের চিকিৎসকরা আঙুল ফুলে কলা গাছ। কেউবা তার চেয়ে বেশি।

মূল্যবোধ সম্পন্ন ও রোগীদের প্রতি সহানুভূতিশীল ডাক্তার সাহেব যে একেবারে নাই তা কিন্তু নয়,অবশ্যই আছে।


সবশেষে সম্মানিত ডাক্তার সাহেবদের কাছে বিনীত অনুরোধ করছি সরকারি হাসপাতালে আপনার দায়িত্ব পালনে সঠিক সেবা দিন। কারণ রোগিদের একটা বড় অংশ দরিদ্র শ্রেণির। অধিকাংশ দরিদ্র রোগীই বিনা চিকিৎসায় মরে।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

1 মন্তব্য