শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

পৃথিবীর তাবৎ মানবশিল্পীদের আমার সালাম। আনতারা লাবিবা


পশ্চিমা পুঁজিবাদ আমাদের শিখিয়ে দিয়েছে, ঘরে থাকো মানে তুমি অকম্মা, বেকার। তোমার স্ত্রী কী করে? কিছু করে না, হাউজওয়াইফ।
.
গর্দভ, তোমার স্ত্রী শিল্পী, মানবশিল্পী। পুঁজি কামানো-জমানো, বস্তু কেনা, ভোগ করাই জীবনের অর্থ-সার্থকতা-মন্ত্র; এই দাসত্বের চশমা খোলো, আর দুনিয়া দ্যাখো। যে টাকা কামায়, সে কম্মা আর যে টাকা বাঁচায়, সে অকম্মা, কিছু করে না! এই ছাগলপ্রজাতির সাইকোলজি থেকে বের হও, ভাইজান। আপনার স্ত্রীর কারণে আপনার সন্তানের টিচার-খরচ, ডাক্তার-খরচ, ডেকেয়ার খরচ, আরও কত খরচ বেঁচে যায়, সেটা চোখে পড়ে না। মাস শেষে যে টাকাটা আপনি জমা করে স্বপ্নের জাল বোনেন, ওটাই আপনার স্ত্রীর ইনকাম। মানবশিল্পের পিছনে বেঁচে যাওয়া মূল্যটাই জমানোর মওকা মেলে আপনার।
.
আর বোনেরা, ক্যারিয়ারের দাসত্ব কখনোই এই ঐতিহ্যবাহী নিপুণতম শিল্পের চেয়ে আরাধ্য হতে পারে না। পুঁজিবাদ আপনাদেরকে পুরুষের প্রতিযোগী বানিয়ে জব-মার্কেটে জোগান বাড়াতে চায়। এতে পুঁজিবাদের লাভ হয়। আপনারা পুরুষের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছেন না, পুঁজিপতিদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছেন। যাতে কম পারিশ্রমিক দেওয়া লাগে, মুনাফা বেশি থাকে ‘জেন্ডার সমতা’র নামে সেই চালই চেলেছে ক্যাপিটালিজম। এটা আপনি যত সহজে বুঝে নেবেন, তত আপনার জীবন মসৃণ হবে, আনন্দদায়ক হবে।
...

নিজ শিল্পীসত্তাকে বেখেয়াল বুয়ার হাতে তুলে দিয়ে, আপনি আনফিট একটা প্রজন্মের জন্ম দিয়ে যাচ্ছেন, আর কিছুই না। আয় করা আর ক্যারিয়ারিজমের বিষ এক না, ইসলাম আপনাকে আয় করতে নিষেধ করে না। কিন্তু ইসলাম নিজ শিল্পীসত্তাকে ব্যবহার করে মনের আনন্দে আপনাকে আয় করতে বলে, ঘরোয়া নিরাপত্তার সাথে। ইসলাম আপনার থেকে ৯টা-৫টা বাধ্যশ্রম নিতে চায় না। কেবল এই মানবশিল্পের খাতিরেই আপনাকে ইসলাম অব্যাহতি দিয়েছে রোজগারের বাধ্যবাধকতা থেকে, যুদ্ধের দায়িত্ব, শাসনের গুরুভার থেকে। ইসলাম মানব চায় না, মানুষ চায়। আর সেই মানুষ গড়ার শিল্পের শিল্পীরা কীভাবে জবাববিহি করবে আসন্ন নষ্ট প্রজন্মের কাছে, সেটাই দেখার বিষয়।
পৃথিবীর তাবৎ মানবশিল্পীদের আমার সালাম।

বই- কুররাতু আইয়ুন : যে জীবন জুড়ায় নয়ন
লেখক - ডাঃ শামসুল আরেফীন
সম্পাদক - আবদুল্লাহ আল মাসউদ
পৃষ্ঠা সংখ্যায় - ১২০
মুদ্রিত মূল্য - ১৭৫ টাকা

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য