শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

একটি ঘটনা আমাকে অসুস্থ করে দিয়েছে। মূসা আল হাফিজ


তামাদ্দুন২৪ডটকম: গতকাল,গাড়ীতে। এক আলেম, হয়তো ইমাম বা শিক্ষক। গাড়ীর সিটে বসা নিয়ে পাশের জনের সাথে তার কী যেন কথা হয়েছিলো। উত্তপ্ত কিছু নয়,মাত্র দু' একটি কথা। তার কথার উপরে কথা বলেছিলেন আলেমটি।

হায় আল্লাহ! এর পরে লোকটির চিৎকার ও গর্জনে, গালি ও হুঙ্কারে সাড়া গাড়ী প্রকম্পিত হতে থাকলো। কখনো থাপড়ানোর কথা বলে,মুখে হাত দেয়, দাড়ীতে টান মারে...
আলেম নিরুত্তর, নিশ্চুপ। সে একাই চিল্লাইছে। এক পর্যায়ে বললো, এই তুই কি জেএমবি না শিবির? নিচে নাম পুলিশে দেবো।
আমার পাশে ছিলেন এক তাবলীগী ভাই। বললাম, আসুন,প্রতিবাদ করি। তিনি বললেন, আপনার কিছু না বলা উচিত। দেখতেই পাচ্ছেন অবস্থা...
আরো দু' একজনকে বললাম। তারা সরব হলেন কিন্তু একান্ত মৃদুলয়ে। লোকটাকে শান্ত করাই যাচ্ছিলো না। এক পর্যায়ে নিজেকেও যুক্ত হতে হলো। আলেম ভাইটিকে কোনো রকম বাঁচানো গেলো। দেখলাম- পাশের মানুষগুলো প্রতিক্রিয়াহীন। বরং গালি ও অপমানের তীব্রতায় দু' একজন নারী হেসে দিলেন। অনেকেই দেখলাম,আলেমটিকেই দোষ দিচ্ছে। কেন সে কথার উপর কথা বললো? কেউ কেউ ' অতিশয় ভালো মানুষ'রূপে কিছু শুনিনি, এই ভান করে বসে আছে।
ক'দিন আগে জামেয়া রাহমানিয়ার মুহাদ্দিস মুফতি মুহাম্মদ আলী কাসেমী ভয়াবহ লাঞ্চনার শিকার হলেন গাড়ীতে। যাত্রাবাড়ীর এক মাদরাসার উস্তাদ মুফতি খলিলুর রহমান লাঞ্ছিত হলেন সে দিন।
আলেমলাঞ্চনা কি সামনে বাড়বে? এটা কি কারো কোনো প্রকল্প? এটা কি স্বাভাবিক হিসেবে ধরে নেয়া হবে?

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য