শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

বদরুজ্জামানের আটক এবং মুক্তির জন্য প্রচেষ্টা আমাদের নতুন ভাবে চিন্তিত ও আশাবাদী করে তুলেছে। সাইমুম সাদী


তামাদ্দুন২৪ডটকম:

যদিও আমাদেরকে বলা হয় আমরা প্রচন্ডরকম দলীয় চিন্তায় আচ্ছন্ন কিন্তু এই ইস্যুতে সবাইকে কথা বলতে দেখা গেছে। তার মানে সমস্যা সৃষ্টি হলে সবাই কাছাকাছি আসি কিন্তু সময় যখন ভাল থাকে তখন দূরে থাকি। এটা কোন সুস্থতার লক্ষণ নয়।

মাওলানা মামুনুল হক ভাই শুরুতেই কথা বলেছেন। প্রতিবাদ করেছেন। দল নয় সামগ্রিক চিন্তাটাই বড় করে দেখেছেন।

কলরবের দুই গ্রুপে প্রচন্ড গন্ডগোল। কিন্তু বদরুজ্জামানের জন্য আবু সুফিয়ানের আন্তরিকতা মুগ্ধ করেছে। আশাকরি আগামীতে সবাই মিলেমিশে থাকবেন।

বদরুজ্জামানের জন্য জমিয়ত নেতা Wali Ullah Arman ভাইয়ের ভুমিকা উৎসাহব্যঞ্জক। শরীরে প্রচন্ড জ্বর নিয়ে তার পেরেশানি নতুনভাবে উদ্দীপ্ত করেছে। নিখাদ আন্তরিকতা ছাড়া তা সম্ভব না।

বরাবরের মত সাহসী বক্তব্য রেখেছেন হাবিবুর রহমান মিছবাহ ভাই। তার বক্তব্য 'ভোলার ঘটনায় কথা বলার জন্য যদি বদরুজ্জামানকে গ্রেফতার করা হয় তাহলে আমাকেও করুন। আমিও প্রতিবাদ করেছি ' কথাটা এই সময়ে অনেক ঝুকিপূর্ণ।

পাশাপাশি সবার খবর সম্পাদক মাওলানা আবদুল গাফফার ও হাফেজ কাইয়ুম মোল্লা, সাইদুজ্জামান নুর এবং খুব স্বাভাবিকভাবেই কলরবের দায়িত্বশীলেরা ছিলেন তৎপর।

তবে যেটা সমস্যা হিসেবে উপলব্ধিতে এসেছে তা হচ্ছে প্রশাসনের সাথে কথা বলার মত লোকের অভাব। বাত্তি জ্বালাইয়া পাওয়া যায়নি। ফেসবুকের সাহসী সেলিব্রিটি আর অফলাইনের সাহসিকতার মাঝে ব্যাবধান আকাশ পাতাল।

এবং ফেসবুকের জেহাদ ফেসবুকের আইডল ফাইডল এনিয়ে দয়া করে আগামীতে কেউ উজ্জীবিত হবেননা প্লিজ। মুজাহিদীনে ফেসবুক থেকে দূরে থাকবেন।

আর নতুন ফেসবুকারদের অনুরোধ করব পোস্ট এবং কমেন্ট করার ক্ষেত্রে দয়া করে চিন্তাভাবনা করে করবেন। আক্রান্ত হলে হাত ধরার মতো লোক খুজে পাওয়া যায়না।

একেকটা বিপদ আমাদেরকে কাছে আসার নতুন নতুন গল্প তৈরি করে দেয়। কিন্তু গল্পগুলো কন্টিনিউ হয়না। নতুন বিপদের জন্য অপেক্ষা করি।

আসুননা, গল্পগুলোকে গন্তব্যে পৌছাই, সিকোয়েন্স ঠিক রেখে এগিয়ে যাই ঐক্যের মোহনায়। একদিন এই সুযোগও হারিয়ে যাবে। তার আগেই...।

লেখক: উপদেষ্টা সম্পাদক-তামাদ্দুন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ