শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

এক পৃথিবী ভালোবাসা: মাঈনুদ্দীন ওয়াদুদ


তামাদ্দুন২৪ডটকম: নশ্বর এই পৃথিবীতে অবিনশ্বর আমরা কেহই নই, পিতা-মাতা, সন্তান-সন্ততি, পরিবার-পরিজন ছেড়ে মায়ার এ পৃথিবী ত্যাগ করতে হবে একদিন। পাড়ি জমাতে হবে পরকাল নামক অধ্যায়ে। তবুও থেমে থাকেনা মানুষের জীবনযাত্রা। সময়ের প্রয়োজনে জীবনের তাগিদে মানুষ ঘর বাঁধে বিপরীত মেরুর অপরিচিত কারো সঙ্গে; দুইজন দুইপ্রান্ত থেকে মিলিত হয়। বসবাস করে একই ছাদের নীচে; জীবনের ছন্দগুলো তাল খোঁজে পায় কবিতার মতোই। কৃত্রিমতা ছাড়িয়ে ভালোবাসা তখন পা রাখে বাস্তবতার দরজায়। একজন মানুষ একটি পরিবারে রুপান্তরিত হয়। অপূর্ণাঙ্গ স্বপ্নগুলো পূর্ণাঙ্গতা ফিরে পায় আর জীবন হয়ে উঠে মধুময়।

কালের পরিক্রমায় স্রষ্ট্রার নিয়মানুবর্তিতায় সাজানো-গোছানো সেই বর্ণিল সংসারে কবিতার মতো জীবনের পদ্যেও ঘটে ছন্দপতন। সময় হয়ে উঠে দুর্বিষহ-যন্ত্রনাময়; জীবনের তাল হারিয়ে যায় অজানা কোনো প্রান্তরে। মান-অভিমান আর অব্যক্ত বেদনার বিস্ফোরণ ঘটে কখনো কখনো। হারানো ছন্দ খোঁজতে খোঁজতে একসময় জীবনের উঠোনে হাজির হয় বার্ধক্যের সন্ধ্যা। হিসেবের খাতা ফুরিয়ে এলেও হিসেব মেলেনা শেষ অবধি। আশা-নিরাশার দোলাচলে জীবন প্রদিপ নিভে যায় কোনো এক ক্লান্তপ্রহরে। চলে যায় একেবারে খুটিহীন সামিয়ানার বাহিরে। এপার ছেড়ে ওপারে। যেখান থেকে ফেরার আর কোনো ফুরসত নেই। হবেনা কোনোদিনও। জীবনের আঁকাবাঁকা এই গতিপথে কাছের বা দূরের মানুষদের ভালোবাসাই একমাত্র পুঁজি। এতোসব বাঁধা-বিপত্তি, পাওয়া না পাওয়ার ফিরিস্তির মাঝেও ভালো থাকুক ভালোবাসা। ভালো কাটুক প্রতিটি প্রহর; সবকিছু মাড়িয়ে ভালোবাসা অটুট থাকুক জনম জনম ভর। অভিনন্দন প্রিয় ফজলে রাববি। অভিনন্দন প্রিয় নব্যভাবি। এক পৃথিবী ভালোবাসা নতুন বর-কনের প্রতি। বারাকাল্লাহু লাকুমা। মহামহিমের অপার অনুগ্রহে উভয়ের ভালোবাসার উঠোন বরকতপূর্ণ হোক! এই কামনাই করছি।
---------------------------
প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক:-
রংধনু সাংস্কৃতিক ফোরাম।
খাদেম:
মাদরাসাতুল মারওয়াহ।
স্বাপ্নিক: তামাদ্দুন।

বি.দ্র: জনপ্রিয় উপস্থাপক ফজলে রাববির বিয়ে স্বারক “যুগলবন্দী”তে প্রকাশিত হয়েছে এই লেখাটি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ