শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

মানুষ কুদরতের সংগুপ্ত সম্ভার, বিপদের ঘূর্ণাবর্তে সেই সম্ভার অন্দর থেকে বেরিয়ে আসে।


তামাদ্দুন২৪ডটকম: ২০০৩ সালে প্রকাশিত বইয়ের একটি বাণী।
এখন দেখছি তার বাস্তবতা। চারদিকে ঘোর অমানিষা। ব্যক্তি, পরিবার ও রাষ্ট্র-সর্বত্র অরাজকতা, বিশৃংখলা, অন্যায়, অনিয়ম চলছে।
সরকার ভাবছে, ভাবছে দেশের জনগণ। যার যার ভাবনা তার তার মতই।
রাজা ভাবছে উপর থেকে। প্রজা ভাবছে নিচ থেকে। ফলে একটা বস্তু রাজা দেখছে ছোট, প্রজা দেখছে বড়। যেমন সেদিন এক স্যার ক্লাসে বলছিলেন ইংরেজি সংখ্যা 6 এর ব্যাপারটা। দেখুন বামের ব্যক্তির নিকটতো ৬। কিন্তু ডানের ব্যক্তির কাছে সেটা কিন্তু নয় (9)।

এভাবেই বাধছে দ্বন্দ্ব, চলছে লড়াই।
আমরা না রাজা না পুরোপুরি প্রজা। দেখতে দেখতে হয়ে যাচ্ছি ভাজা ভাজা। সমস্যা নাই। এভাবেই হয়তো হয়ে যাবো তাজা।
যাতে না খেতে হয় সাজা। সে যাই হোক.....

তৃতীয় চোখ প্রয়োজন। আমাদের থেকেই। বিদেশ থেকে নয়।
তবেই উঠে আসবে প্রকৃত সত্য। মিলতে পারে সঠিক সমাধানসূত্র।
তো তৃতীয় চোখের প্রধান বৈশিষ্ট্য বোধহয় নির্মোহ গুণ থাকা। নয়তো চিন্তা পরিস্কার হলেও ব্যক্তি হয়ে যেতে পারে বিক্রিত। কিংবা চিন্তাও হতে পারে বিকৃত। তখন তৃতীয় চোখ হবে নিন্দিত।
তাই, যদি কেউ হতে পারেন প্রবল আত্মবিশ্বাসী, তবে আপনার ভূমিকাই এখন জাতির জন্য হতে পারে মুখ্য। অতীব প্রয়োজনীয়।
সেই কাজটি না করে কি আপনি ঘুমাতে পারেন? বলুন!
সত্য সুন্দর বিপ্লবের তরুণমানস প্রশ্নটা আপনার কাছেই রাখলাম। কারণ আমাদের প্রবীণরাতো যাবার পথে, দেশ ও জগতের জন্য অবদান রাখতে রাখতে তারা এখন ক্লান্তক্লিষ্টপ্রায়। এখন সময় আপনার, যার বয়স ২৫ থেকে ৪০
আপনার সমুদয় সময় ব্যপৃত হোক এই দেশ ও জাতির ত্রাণকর্মপ্রবাহে।
জান্নাতের নমূনায় গড়া আমাদের এই নদীজলবায়ু আর সবুজসমারোহের প্রিয় জন্মভূমিটা থাকুক নিটোল নিরাপদ। হোক শান্তি ও সুখের।

তবে আাজ এখানেই টানলাম ইতিরেখা
খুব কাছাকাছি আপনার সাথে আমাদের হচ্ছেতো দেখা?

চিন্তার আসরে, বুদ্ধিবৃত্তিক তৎপরতায়।

লেখক: চেয়ারম্যান-ক্যারিয়ার বাংলাদেশ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য