শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

বিশিষ্ট আলেম আরজু আহমাদ এর সাক্ষাৎকার


তামাদ্দুন২৪ডটকম।

আরজু আহমাদ । প্রতিভাবান তরুণ আলেম, লেখক। তাঁর কাছে প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়ার চেয়ে অপ্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়ার গুরুত্ব অনেক বেশি। যদিও যুগ এখন প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়ার। আরজু ভাই লেখেন চমৎকার। বিশেষত ইতিহাস এবং সমসাময়িক বিষয় নিয়ে লেখেন। বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর তিনি এড়িয়ে গেছেন। এটা তাঁর প্রাইভেসি। দিন-দিন তাঁর প্রতিভা বিকশিত হবে, এই প্রত্যাশা রইল।

প্রতি সপ্তাহে সময় সুযোগমতো ১/২/৩টি সাক্ষাৎকার পোস্ট করা হবে। সাক্ষাৎকারগুলো আমার কাছে সংরক্ষিত থাকবে। প্রতিভাবানদের মতামত ও জীবনধারা থেকে উপকৃত হবো, ইনশাল্লাহ।

১. আপনার জন্ম, বেড়ে উঠা ও পড়াশোনা কোথায়?
- ময়মনসিংহ সদরেই।

২. লেখালেখির সূচনা কবে থেকে? সর্বপ্রথম কোথায় লেখা প্রকাশিত হয়? তখনকার অনুভূতি কেমন ছিল?

- দৈনিক ইত্তেফাকে, তখন ক্লাস এইটে পড়ি। চিঠিতে লেখা পাঠাতাম। বিশেষ কিছুই বোধ হয় নি। পত্রিকার অন্য সব লেখার ক্ষেত্রে নিজেকে পাঠকের জায়গায় রেখে দেখলে মনে হতো আমার লেখা ছাপা হওয়াটা যৌক্তিক। এই বোধ উচ্ছ্বসিত হতে দেয় নি।

৩. আপনার প্রকাশিত বইগুলো কী কী?
-প্রকাশের অপেক্ষমাণ আছে একটা নন ফিকশন এবং একটা ফিকশন।

৪. এখন কী কী কাজ হাতে আছে?
-ইংরেজিতে দুটো মৌলিক বইয়ের কাজ করছি।

৫. লেখালেখির ক্ষেত্রে আপনার প্রেরণা ও আদর্শ কে?
- সেভাবে কেউ নেই। তবে ইকবাল, হাফিজ এবং রুমি প্রচণ্ডরকম তাড়িত করে।

৬. কোন সময় লিখতে ভালোবাসেন?
- ফেসবুকের জন্য আমি লিখি প্রধানত গাড়িতে বসে থাকার সময় কিম্বা কোথাও কিছুর জন্য অপেক্ষায় থাকবার সময়ে।

৭. প্রধানত কী বিষয়ে লিখতে ভালোবাসেন?
- ইতিহাস, রাজনীতি ও কথাসাহিত্যে আগ্রহ বেশি।

৮. সর্বাধিক পঠিত বই?
- কোরআন শরিফ ব্যতীত কোনও বই দুবার পড়েছি এমনটা স্মরণ হয় না।

৯. কোন বইটি পড়ে সম্মোহিত হয়ে গিয়েছিলেন?
- বইকে আমি সবসময়ই লেখকের অভিব্যক্তি হিসেবে গ্রহণ করেছি। প্রত্যেক বইয়ের ব্যাপারেই আমি প্রশ্ন করে করে পাঠ করেছি। সম্মোহন কাজ করে নি।

১০. এখন কী পড়ছেন?
- ফিকশন পড়ছি To kill a Mocking Bird by Harper Lee, The Joke by Milan Kundera নন ফিকশনের মধ্যে Charles Lam Markmann এর ইংরেজি অনুবাদে ফ্রাঞ্জ ফানোঁর Black Skin, White Masks, তারিখে তাবারী, কিতাবুয যুহদ, আইনের বইয়ের মধ্যে An Introduction to the Principles of Morals and Legislation by Jeremy Bentham

১১. প্রিয় কয়েকটি বইয়ের নাম বলুন
- প্রিয় বলব না, তবে পছন্দের তালিকায় রুমির দিওয়ানে শামস তাবরেজি, মসনবী। হাফিজের দিওয়ানে হাফিজ। নজরুলের জিঞ্জির, অগ্নিবীণা। ফররুখের সাত সাগরের মাঝি, সিরাজামমুনিরা উল্লেখ্যযোগ্য।

১২. প্রিয় ফেসবুক লেখক?
- অনেককে পছন্দ, আলাদা করে প্রিয় নেই কেউ।

১৩. এই যে লেখালেখি, এ নিয়ে জীবনের সমাপ্তি বেলায় কী দেখতে চান?
- আমার লেখালেখি মানুষের সেই মানবিক বোধ বৃদ্ধির সহায়ক হোক, যে বোধ কল্যাণ দেয়।

১৪. জীবনের স্বপ্ন ও লক্ষ্য কী? লক্ষ্য পূরণে কী পরিকল্পনা নিয়েছেন?
- মানুষের রাজনৈতিক ,অর্থনৈতিক এবং আধ্যাত্মিক মুক্তি ও উন্নয়নের জন্য কাজ করা। আল্লাহ উত্তম পরিকল্পনাকারী।

১৫. কী হতে চেয়েছেন? কী হয়েছেন?
যা হতে চেয়েছি, এখনো অবধি রব্ব সে পথেই অটল রেখেছেন।

১৬. বাংলাদেশে ইসলামী রাজনীতির ভবিষ্যৎ কী? আপনার পরামর্শ বলুন।
- এদেশ ইসলামী রাজনীতির জন্য চাষযোগ্য উর্বর ভূমির মত। আফসোস, আজও কোনও উপযুক্ত কৃষক নেই যে ঠিকমতো চাষ করতে জানেন।

১৮. আলেমসমাজের কোন কোন ক্ষেত্রে বেশি কাজ করা দরকার?
- সমাজের সর্বক্ষেত্রে। বিশেষত রাজনৈতিক ও অধিকারের প্রতি যেসব গণদাবি আছে, তা আদায়ে সক্রিয় হতে।

১৯. কওমি মাদরাসার পাশাপাশি আলিয়ায় পরীক্ষা দেওয়া এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার বিষয়ে আপনার মতামত কী?
- উদ্দেশ্য দ্বীনের কল্যাণ হলে তা ঠিক আছে।

এবার কিছু ব্যক্তিগত প্রশ্ন

২০. প্রিয় খাবার?
- মিষ্টি, ফল এবং ঝলসানো মাংস।

২১. ইন্টারনেট ও ফেসবুক ব্যবহার সম্পর্কে আলোকপাত করুন।
- প্রত্যেক কাজই করার সময় মনে রাখবে, এর জন্য আল্লাহ জিজ্ঞাসা করবেন। প্রতিটা লাইকের জন্যেও। এই ভাবনা মাথায় থাকলেই হবে।

২২. মাদরাসার ছাত্রদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন।
- সমাজের প্রচলিত ধারার সাথে মিশবার জন্য নিজের স্বাতন্ত্র্যকে মুছে দেবার প্রয়োজন নেই। বরং যা কিছু করা হবে, সব হবে দ্বীনের জন্য এই হোক মনোভাব।

সাক্ষাৎকার গ্রহণে: মুফতী মহিউদ্দীন কাসেমী।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য