শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

রাসূল সা. অবমাননার সর্বোচ্চ শাস্তির আইন পাশ করতে হবে: ইত্তেফাকুল মুসলিমীন


তামাদ্দুন২৪ডটকম: বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের আমির ও ইত্তেফাকুল মুসলিমীন বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী বলেছেন, একজন মুসলমান তার জীবনের চেয়ে আল্লাহ ও তাঁর রাসূল সা. কে বেশি ভালবাসে। যখন আল্লাহ, রাসূল ও ইসলামকে নিয়ে কেউ কটুক্তি করে তখন মুসলমানদের অন্তরে চরমভাবে আঘাত লাগে।

গত ৩১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে ইত্তেফাকুল মুসলিমীন বাংলাদেশ আয়োজিত আল্লাহ ও রাসূল সা. এর মর্যদা রক্ষায় সর্বোচ্চ শাস্তির আইন পাশের অপরিহার্যতা শীর্ষক সেমিনারে সভাপতির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন।

মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী বলেন, ধর্ম অবমাননার অপরাধের শাস্তির আইন থাকলেও তার কার্যকারিতা না থাকায় অনেকেই বার বার ধর্ম অবমাননার ধৃষ্টতা দেখাতে সাহস পাচ্ছে। দেশের কোটি নবী প্রেমিক মানুষের প্রাণের দাবি আল্লাহ-রাসূল সা ও. ইসলাম কে অবমাননার সর্বোচ্চ শাস্তির আইন মৃত্যুদণ্ড পাশ করতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে মন্ত্রী-এমপি, নেতা-নেত্রীদের বিরুদ্ধে কুটক্তিকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করা হচ্ছে অথচ আল্লাহ-রাসুল, কুরআন-সুন্নাহ নিয়ে কুটক্তিকারীদেরকে গ্রেফতার ও বিচার করা হচ্ছে না।

মহাসচিব মুফতি আব্দুল্লাহ ইয়াহইয়া বলেন, বাংলাদেশের মত মুসলিম দেশের বিভন্ন স্থানে মানবতার মুক্তির দূত মুহাম্মাদ সা. কে কুটক্তি করা হচ্ছে যা কিছুতেই বরদাশত করা যায় না। এটা ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। এ দেশের জনগন ইসলাম ও দেশ বিরোধী সকল ষড়যন্ত্রের সঠিক জবাব দিবে।

সেমিনারে ভোলায় মহানবী সা. কে কটুক্তিকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং নিরীহ ধর্মপ্রাণ জনতাকে গুলি করে হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবী জানানো হয়। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আলেম-ওলামা ও ইসলামের পক্ষে যারা কথা বলে, তাদেরকে গুম ও হয়রানীর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

এতে অন্যান্যদের বক্তব্য রাখেন মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা মুসা বিন ইজহার, মাওলানা মোখলেছুর রহমান কাসেমী, মুুফতি ওসমান গনী, ড. মাওলানা শহিদুল ইসলাম ফারুকী, মাওলানা এনামুল হক মুসা, মুফতি লুৎফুর রহমান ফরায়েজী, মুফতী হাফিজ আহমদ আমিনী, মুফতি সুলতান মহিউদ্দীন, মুফতি আফজাল হুসাইন, মুফতি শামসুদ্দোহা আশরাফী, মুফতি যুবায়ের গনী, মুফতি আফম আকরাম হুসাইন, মাওলানা আব্দুল্লাহ ইদরীস, মুফতী ইউসুফ মুহাম্মাদ, মুফতী আবদুল্লাহ শাকির, মুফতি আহমাদ ঈসা হাবিবী, মাওলানা আব্দুল্লাহ আল ইসরাফিল, মুফতী রফিকুন্নবী হক্কানী, মুফতি মোর্শেদ আলম কাছেমী, মাওলানা ইসমাঈল হোসেন সিরাজী, মুফতি ফখরুল ইসলাম কাছেমী, হাফেজ মোজাহিদুল ইসলাম নড়াইলী প্রমূখ। সেমিনারে ইত্তেফাকুল মুসলিমীন বাংলাদেশের ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য