শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

“এবার আওয়াজ উঠুক ইসলামী বইমেলার”


প্রতিবছর একটি বইমেলা হয় বাংলা একাডেমী প্রাঙ্গণে। বাংলা একাডেমী সবার হলেও সেই বইমেলায় সবাই স্টল বরাদ্দ পায় না। বিশেষত: ইসলামী ঘরাণার বই যারা প্রকাশ করেন তাদেরতো সুযোগ নেই বললেই চলে। যে কারণে আমাদের প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রচারণার কাজে বিঘ্ন ঘটে এবং একই কারণে শত ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে তারা সাফল্যের সিঁড়ি না পেয়ে কাঙ্খিত জায়গায় যেতে পারে না। ফলাফলে বন্ধ হয়ে যায় প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলো।


এমন অপমৃত্যু থেকে ইসলামী ঘরাণার লেখক-সম্পাদক ও প্রকাশকদের বাঁচাতে একটু অপছন্দনীয় শিরোনামে হলেও বাইতুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে একটি ইসলামী বইমেলার আয়োজন করেছে ইসলামী ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। সরকারী এই উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। এই আয়োজন ধারাবাহিক থাকুক এটাই আমরা চাই।

প্রতিবছর এমন আয়োজন হলেও এবারের সাড়া একটু ভিন্ন। কিছু উম্মাহ-চিন্তক ও নি:স্বার্থ মানুষের হস্তক্ষেপে এবছর ইসলামী বইমেলার আওয়াজ ছড়িয়ে পড়েছে গোটা দেশে। এর মধ্যে ক্যারিয়ার বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মুফতী আফজাল হুসাইন অন্যতম। এছাড়া রেডিও ৭১ এর আর জে মাও. মামুন চৌধুরীর ভূমিকাও এখানে উল্লেখযোগ্য।
ফেসবুক ও সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে মেলার দাওয়াত পৌঁছে যাচ্ছে প্রতিটি মানুষের কানে কানে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে বইপ্রেমীরা ছুটে আসছে তাদের পছন্দের লেখকের বই ক্রয় করতে। একনজর দেখার জন্য হলেও আসছে কেউ কেউ। অনেকে আবার আসছে এই বইমেলাকে ফলোআপ করতে। অনেকে আসছে স্বপরিবারে।
এই মেলাটির প্রচার-প্রসারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে ইসলামী ধারার নিউজ পোর্টালগুলো। এজন্য তারা অবশ্যই ধন্যবাদ পাবার যোগ্য।

বইমেলায় যারা স্টল দিয়েছেন সবগুলোর নাম জানা না থাকায় কয়েকটা স্টলের নাম উল্লেখ করছি। রুহামা পাবলিকেশন্স, রাহনুমা প্রকাশনী, এমদাদিয়া লাইব্রেরী, মাকতাবাতুল হাসান, গার্ডিয়ান প্রকাশনী, সমকালিন প্রকাশনী, বার্ড কম্প্রিন্ট, মুসলিম ভিলেজসহ আরও অনেকে। এছাড়াও ব্যক্তিগত স্টল দিয়েছেন লেখক মাওলানা সেলিম হোসেন আজাদী।

আর নয় একুশে বইমেলা। এবার আওয়াজ উঠুক ইসলামী বইমেলার।
আসুন, সবাই ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর স্বার্থে যার যার অবস্থান থেকে ইসলামী বইমেলার প্রচার করি। আমাদের একটু প্রচার-প্রসারে এই বইমেলা জমে উঠুক। ইসলামী ঘরাণার লেখক, সম্পাদক ও প্রকাশকদের মনে আত্মতৃপ্তি আসুক।

মাঈনুদ্দীন ওয়াদুদ

স্বাপ্নিক: তামাদ্দুন
মুহতামিম: মারওয়াহ
পরিচালক: রংধনু

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য