শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

ফাহাদ আবরার ও এক নব্য ধার্মিকের গল্প: সাইমুম সাদী



মাথায় খোপা বাধা একটি ছেলেকে বায়তুল মোকাররম মসজিদে নামাজ পড়তে দেখলাম গতকাল। কিছুক্ষণ পর ইসলামী বইমেলায় ঘুরে ঘুরে বই কিনতেও দেখলাম।
কিছুটা যেচে গিয়ে কথা বললাম। সালাম কালামের পর আলাপ করলাম ক'মিনিট।

বললাম, সম্ভবত ব্যান্ড সংগীত নিয়ে কাজ করেন?
সে বললো, অনেকেই তাই মনে করে। চুল লম্বা রাখি ফ্যাশন হিসেবে। গায়ক হিসেবে নই। তবে ব্যান্ডের ভক্ত ছিলাম এক সময়।

কি বই কিনলেন আজ?
কুরআন সম্পর্কিত বই খুজতে এসেছি। এখনো কিনিনি। তবে কিনব ইনশাআল্লাহ। এখন দেখছি।

কিন্তু...

আমাকে কথার মাঝখানে বাধা দিয়ে বললো, আপনার প্রশ্ন চুলে খোপা আর হাতে চুড়ি পরে কিভাবে কুরআনের লাইনে এসেছি এইতো?
আমি হেসে মাথা নাড়ালাম।

সে বললো, সারাক্ষণ গানে ডুবে থাকতাম আমি। আইউব বাচ্চু ছিলেন আমার গুরু। সাকিব খান ছিলেন আমার পছন্দের নায়ক তাছাড়া দেশী বিদেশী ...
ইতিমধ্যে তার আরেক বন্ধু এসে যোগ দিলো আমাদের সাথে। ওর কানে দুল দেখে টাসকি খেলাম।

সে বলতে লাগলো, ওকে দেখে আশ্চর্য হতে পারেন। আমি বলছি শুনুন। একদিন ইউটিউবে এক মাওলানার ওয়াজ শুনলাম কুরআন নিয়ে।কুরআনে নাকি সব সমস্যার সমাধান আছে।
এবং তখন থেকে আমি ও আমার বন্ধু মিলে কুরআন ইন্টারনেট থেকে পড়তে শুরু করলাম। প্রশান্তির পরশ যেনো সারা অস্তিত্বে ছড়িয়ে পড়লো। স্থানীয় একটি মাদ্রাসার মুফতি সাহেবের সাথে দেখা করে কুরআন সম্পর্কে জানতে চাইলাম। জানলাম। এখন কুরআনের খেদমতেই বাকি সময় ব্যায় করার নিয়ত করেছি। গান ছেড়ে দেব চিন্তা করছি। দোয়া করবেন।...

কথা অনেক লম্বা। তারা দুজন বিদায় নিয়ে বই কিনতে চলে গেলো।

আমার মনে পড়ল বুয়েটের আবরার ফাহাদের কথা। আবরার কোনও ইসলামিক ব্যাকগ্রাউন্ডের ছেলে ছিলনা। সে জানত বুয়েটে ইসলাম চর্চা বিপদজনক। যেকোনো মুহুর্তে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা। তারপরও ছেলেটি কেমন দু:সাহসে ইসলাম চর্চা করত,নামাজের দাওয়াত দিত!

মূলত এটাই হচ্ছে কুরআনের অলৌকিকত্ব। যে পড়ে তাকে কুরআন প্রভাবিত করে। চুম্বকের মত টেনে নেয়।এবং এজন্যই ইসলাম আমাদের ইসলামী দল ও ব্যাক্তিত্বের কাছে মুহতাজ নয়।
শুধুমাত্র কুরআনের সংস্পর্শে নিজে আসুন অন্যকে আসতে দিন। হেদায়েতের পথে ফিরে আসবে মানুষ।

ওই দুই বন্ধুর ছবি দিচ্ছিনা তাদের অনিচ্ছা তাই। তবে ছবি রেখে দিয়েছি ফোনে৷। কোনো একদিন হয়ত দেব। আসুন তাদের জন্য দোয়া করি। আল্লাহ তাদেরকে হেদায়েতের পথে অনেকদুর নিয়ে যাক। এবং কুরআনের সংস্পর্শে থাকার জন্য আমাদেরকেও তাওফিক দান করুন রাব্বুল ইজ্জত।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ