শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

জ্ঞানীরা সর্বদাই সত্যান্বেষী হয়

মুফতি সাখাওয়াত হোসেন রাজী : ওরা কারা? ওরা কোন দলের? ওরা কোন প্রতিষ্ঠানের? কেমন পরিবেশে বড় হয়েছে ওরা? যারা কমেন্টে ওলামাদের গালিগালাজ করে! ওরা কি সত্যিকার অর্থেই কোন ব্যক্তিত্বের ভক্ত? এমন ব্যক্তিরা কি কোন ইসলামী দলের কর্মী হতে পারে?

ইতিপূর্বে খারেজী মু’তাজিলা শিয়া মাজারপূজারীদের ভেতরে ওলামাদের প্রতি যে বিদ্বেষ দেখা গেছে এ প্রজন্মের কতিপয় অনুজ থেকে সে বিদ্বেষ প্রকাশ পাচ্ছে। আল্লাহ ভালো জানেন, হতে পারে তারা হতাশায় নিমজ্জিত কিংবা বিকৃত চিন্তার অধিকারী কোন সম্প্রদায়।

যুগে যুগেই মাসআলা নিয়ে ইখতেলাফ হয়েছে। রচিত হয়েছে পাল্টাপাল্টি কিতাব। কখনো কখনো এক পক্ষ আরেক পক্ষের ক্ষেত্রে শক্ত শব্দ পর্যন্ত ব্যবহার করেছে। কিন্তু তাঁদের অনুসারীরা বাড়াবাড়ি তো দূরের কথা পক্ষে-বিপক্ষে মতামত দিতে গিয়েও সর্তকতা অবলম্বন করেছেন।

কোন মাসআলা নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হলে ব্যক্তিতে অন্ধ না হয়ে কিংবা দলান্ধ না হয়ে সঠিক সমাধান তালাশ করা উচিত। মনে মনে ইসলামিস্ট কিংবা কোন ইসলামী দলের কর্মী হলেই ইসলামের সব বিষয়ে জ্ঞান অর্জিত হয়ে যায় না। সঠিক সমাধানে পৌঁছাতে হলে পর্যাপ্ত ইলম অর্জন করার পরেও সত্যের অনুসন্ধানে যথেষ্ট শ্রম দিতে হয়।

আর জ্ঞানীরা সর্বদাই সত্যান্বেষী হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য