শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

সিটি কলেজের ৩ শিক্ষার্থী কারাগারে

আমিন মুনশি : ঢাকা কলেজের পাঁচ শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতে আহতের ঘটনায় সিটি কলেজের তিন শিক্ষার্থীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক রাজেশ চৌধুরী এই আদেশ দেন। এর আগে বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে ধানমন্ডি থানায় দায়ের করা মামলায় তাদের গ্রেফতার করা হয়। ধানমন্ডি জোনের এডিসি আব্দুল্লাহ হিল কাফি এ তথ্য জানান।

শুক্রবার আদালতে হাজির করে তাদের তিন দিনের রিমান্ড চান ধানমন্ডি থানা পুলিশ। কিন্তু আসামিরা কিশোর হওয়ায় বিচারক রিমান্ড নামঞ্জুর করেন।

আসামিরা হলেন—সাব্বির আজাদ সাকির, ইয়াছিন সরকার ও আশিকুর রহমান। তারা ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

জানা যায়, শত্রুতার জেরে বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় সায়েন্স ল্যাব এলাকায় অজ্ঞাত যুবকেরা ঢাকা কলেজের প্রথম বর্ষের পাঁচ শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত করে। এরপর বেলা ৩টার দিকে চাঁনখারপুলে সিটি কলেজের এক শিক্ষার্থীকে বাস থেকে নামিয়ে মারধর করে ঢাকা কলেজের ছাত্ররা।

ঢাকা কলেজের আহত শিক্ষার্থীরা হলেন—প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী নেহাল (১৭), তার ডান পায়ে ছুরিকাঘাত করা হয়; ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তানভীর (১৭), তার হাতে ছুরিকাঘাত করা হয়। সাফিয়ান (১৭), তার পিঠে ছুরিকাঘাত করা হয়। সোয়াদ (১৭), তার পেটে ছুরিকাঘাত করা হয়; তিনি আইসিইউতে চিকিৎসাধীন এবং মোহাম্মদ রাহাত (১৭), তার পেটে ছুরিকাঘাত করা হয়।

অন্যদিকে, হামলায় আহত সিটি কলেজের শিক্ষার্থী মো. ফয়সাল হোসেন (২০) ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির জানান, সংঘর্ষে আহত নেহালের বাবা বাবুল সরদার বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মামলা দায়ের করেন। ওই রাতেই তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

হামলা-পাল্টা হামলার পর ঢাকা কলেজ ও সিটি কলেজের শিক্ষার্থীদের শান্ত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি বলেন, ‘দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোনও পক্ষই যেন বাড়াবাড়ি না করে। তারা যেন শান্ত থাকে।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য