শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

বিজ্ঞান মৌলবাদী এই খুনি দলের শাস্তি হবেই

শিবলী আহমেদ : মনে হয় এই যাত্রায় বেঁচে গেছি। ভেবেছিলাম মেয়াদ শেষ আমার। জ্বরের প্রকোপ এতই ছিল যে সেন্সলেস হয়ে গিয়েছিলাম। প্রায় একযুগ পর অজ্ঞান হলাম। বাবা পাশে ছিল। ভেবেছিল- মারা গেছি। কিন্তু বাবার মরণ-কাঁদন শুনে আমি চৈতন্য ফিরে পাই।

এখন জ্বর নেই। তবে মাথায় যেন পাহাড় চেপেছে! উঠে বসতে পারছি না; ধড়াম করে শুয়ে পড়ছি। শরীর দুর্বল। হাত-পা থরথরিয়ে কাঁপে। তবে ক্ষুধা আছে বেশ। তিনবেলাই সাঁটাচ্ছি। অ্যান্টিবায়োটিক চলছে।

হাতে একগাদা কাজ। অফিসের কাজ তো আছেই। নিজের কাজও জমে আছে। সকলের সঙ্গে যোগাযোগ প্রায় বিচ্ছিন্নই রেখেছি।

যাক গে, এবার বুদ্ধিজীবীতায় আসি। টানা চারদিন বুদ্ধিজীবীতা করি না! উফ! ভাবা যায়!

বিজ্ঞান মৌলবাদীদের প্রভুদের তৈরি করোনা থেকে আজ বেঁচে গেলেও কাল যে আক্রান্ত হব না, তার নিশ্চয়তা নেই। সামনের দিনগুলোতে হয়তো মানুষ নয়, ঔষধবাণিজ্যের একজন ক্রেতা হিসেবেই আমাকে বাঁচিয়ে রাখবে বিজ্ঞান মৌলবাদীরা।

বিজ্ঞান মৌলবাদীদের বিশ্বাসের ধরন, ধার্মিকের বিশ্বাসের চেয়েও কট্টর। ধর্ম অস্বীকার সুযোগ এখনও পৃথিবীতে রয়েছে কিন্তু বিজ্ঞান অস্বীকার করার সুযোগ রাখেনি মৌলবাদীরা।

উচ্চ ডায়াবেটিস নির্মুল হয়? উচ্চ রক্তচাপ নির্মুল হয়? উচ্চ ক্যান্সার? উচ্চ হৃদরোগ? নির্মুল হয় এগুলো? সামান্য ডেঙ্গুতে মানুষ মরে যাচ্ছে, তবুও এদের বিজ্ঞান পুজা কমে না।

হ্যাঁ, এসবের চিকিৎসা বিজ্ঞানই বের করে/ করবে। তাই বিজ্ঞান একটি শক্তি। আমি স্বীকার করি বিজ্ঞান একটি শক্তি। কিন্তু বিজ্ঞানকে আমি 'পরম শক্তি' মানতে নারাজ। এখানেই বিজ্ঞান মৌলবাদীদের সঙ্গে আমার ফারাক। তারা যখন বিজ্ঞানকে চুড়ান্ত ধরে নিচ্ছে, আমি তখন বিজ্ঞানকে ভাবছি অর্ধেক। বিজ্ঞানের কারণে পশু হত্যা সহজ হয়েছে, মানুষ হত্যা সহজ হয়েছে, পরিবেশের এই চুড়ান্ত অবক্ষয়ের জন্য দায়ী বিজ্ঞান।

এই বিজ্ঞান যত ক্ষতি করেছে, ততটা উপকার করেনি। মারণব্যাধির ওষুধ 'সময়মতো' হাতে দেয়নি। যতক্ষণে দিয়েছে, ততক্ষণে মানুষ মরে গাঁ উজাড়! যদিওবা সময়মতো দিয়েছে, সেটা কাজে লেগেছে কোটিপতির, দরিদ্রের কাজে আসেনি।

যা হোক, বিজ্ঞান মৌলবাদীরা করোনা দিয়ে এবার কতজন মানুষ মারতে পারবে জানি না; কিন্তু কয়েক বছর পর আবার যখন তারা নতুন করে নতুন কোনো জীবাণুবোমা নিয়ে আসবে, সেটা থেকে বাঁচবেন কীভাবে!

কোনো জীবাণু নিয়ে গবেষণা করার সময়ই সেই জীবাণুর ভ্যাকসিন আবিষ্কার করা কেন বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না- সেটা একবার ভেবে দেখেছেন? ভাববেন কীভাবে! আপনারা তো বিজ্ঞানান্ধ। ধর্মান্ধের চেয়েও ভয়ংকর আপনারা।

মানুষ হত্যার এই লীলার প্রতিশোধ নেবে প্রকৃতি। বিজ্ঞান মৌলবাদী এই খুনির দলের শাস্তি হবেই। এরা নিজেরাই নিজেদের ধ্বংস করবে ইনশাআল্লাহ।
লেখক : সাংবাদিক ও গবেষক

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ