শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

অভাব নয় স্বভাবই দায়ী : মাঈনুদ্দীন ওয়াদুদ


তামাদ্দুন সম্পাদকীয়: আমি যখন এই লেখাটি লিখছি , তার আগের দিন পর্যন্ত হাতে গোনা কয়েকটি ছাড়া বিশ্বের প্রায় সবকটি দেশেই ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। আমেরিকায় একদিনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারীর সংখ্যা ১৭০০। ইতালিতে ১৪০০। ইংল্যান্ড ১০০০। বাংলাদেশে আক্রান্ত ১৫৭২। মৃত্যুবরণকারী ৬০ জন। মৃত্যুবরণকারীর অধিকাংশই অমুসলিম।

মহামারীসহ সবধরনের বিপদাপদে পতিত হওয়ার বিষয়ে মহান আল্লাহ সুরা তাওবার ৫১ নং আয়াতে বলেন; আপনি বলুন; আমাদেরকে শুধু তাই আক্রান্ত করবে যা আল্লাহ আমাদের জন্য লিখে রেখেছেন। তিনি আমাদের অভিভাববক, আর তার ওপরে মুমিনরা তাওয়াক্কুল করে।

অপরদিকে রাসুল ( সা.) এর হাদীসের ভাষ্য অনুযায়ী এধরনের মহামারী কিংবা ভাইরাস জনিত কারণে যারা মৃত্যুবরণ করবে, তারা শাহাদাতের মর্যাদা লাভ করবে। আর অমুসলিমদের জন্য নিয়মতান্ত্রিক সমবেদনা জানানো ছাড়া কিছুই বলার নেই।

প্রিয় পাঠক, দূর্নীতিতে একাধিকবার চ্যাম্পিয়ন হয়ে জর্জরিত হতদরিদ্র দেশের তালিকা থেকে যখন বের হওয়ার প্রাণান্তকর চেষ্টায় বাংলাদেশ, ঠিক তখনি বিশ্ব মহামারী করোনা আঘাত হানলো দেশটির ওপরে । যার প্রতিরোধ কিংবা নিরাময় কোনোটির সাধ্য বাংলাদেশের নেই। তবুও আপ্রাণ চেষ্টা চলছে নিয়ন্ত্রণের । ইতোমধ্যেই সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মিলকারখানাসহ সবধরনের প্রতিষ্ঠান ১৭মার্চ থেকে ধারাবাহিকভাবে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে। শোনা যাচ্ছে এই তারিখ মে এর শেষ পর্যন্ত গড়াতে পারে।

উচ্চবিত্ত মানুষ ব্যাংক-ব্যালেন্স থেকে এই সময় খরচ করতে পারবে। নিম্নবিত্ত মানুষ চেয়ে নিয়ে কিছুটা লাঘব করতে পারবে। তবে, যারা মধ্যবিত্ত তারা না পারবে কারও কাছে বলতে, না পারবে সইতে। মধ্যখানে অর্থাভাবের কারণে বড় ধরনের ঝড় বয়ে যাবে তাদের ওপর দিয়ে। যার মোকাবেলা করে দাঁড়িয়ে ওঠা অনেকের পক্ষেই অসম্ভব ।

সরকার এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে কিছু ত্রাণের ব্যবস্থা করেছে বলে খবর পাওয়া গেলেও সেটা দলীয় কিছু নীতিহীন নেতাকর্মীদের মাধ্যমে হওয়ায় জনগন পর্যন্ত পৌঁছার আগেই উধাও হয়ে যাচ্ছে। ত্রাণের কিছু ছবি, কৃত্রিম ভিডিও আর নেতাদের একরাশ আশার বুলি ছাড়া কিছুই মিলছে না জনগণের ভাগ্যে।

তাই স্পষ্টভাবে আমি বলতে পারি, এই করোনা পরিস্থিতিতে আমরা যে দুর্ভিক্ষের দিকে এগুচ্ছি এজন্য শুধু অভাব নয়, আমাদের স্বভাবও দায়ী।

পরিশেষে বিত্তশালী সমাজের প্রতি অনুরোধ, জনতার এই দুর্দিনে আপনারা সাধ্যমতো জনগণের পাশে দাঁড়ান। ঘুরে ঘুরে আপনারা চারপাশের দু:স্থ-অসহায়, গরিব মানুষদের খোঁজ-খবর নিন। বিশেষ করে লজ্জায় যারা মুখ খুলতে পারে না, স্বতস্ফূর্তভাবে তাদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের মুখে হাসি ফোটান। জনগণের দু:খ-দুর্দশার এই দিনে আপনার সামান্য ত্যাগ অনেকের অসামান্য উপকারে আসবে। যার উত্তম প্রতিদান মাওলার কাছে একদিন অবশ্যই পাবেন।
আল্লাহ আমাদের ক্ষমা করুন। করোনা নামক এই গজব থেকে আমাদের মুক্তি দিন।

লেখকঃ সম্পাদকঃ তামাদ্দুন '


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য