শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

বাড়ি ভাড়া মওকুফের আদেশ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্মারকলিপি


তামাদ্দুন ডেস্ক: এপ্রিল, মে ও জুন- এই তিন মাসের বাড়ি ও দোকান ভাড়া মওকুফের নির্বাহী আদেশ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যৌথভাবে স্মারকলিপি দিয়েছে ‘ভাড়াটিয়া পরিষদ’, ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন’ এবং ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন ’ নামের তিনটি সংগঠন।

২৭ এপ্রিল সোমবার দুপুরে ‘ভাড়াটিয়া পরিষদ’ সভাপতি মো. বাহারানে সুলতানা বাহার,দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন’ সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন এবং ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন’ সভাপতি মো. মাহামুদুল হাসান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এই স্মারকলিপি পৌঁছে দেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ডাক গ্রহণ ও বিতরণ বিভাগের কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন স্মারকলিপি গ্রহণ করেন বলে সংগঠন তিনটির নেতারা আমাদেরকে জানিয়েছেন।

এর আগে বেলা ১১টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে পৃথকভাবে জাতীয় পতাকা সম্বলিত ভ্যানে করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে উদ্দেশ্যে রওনা করেন তারা। ভ্যানে একটি কাগজের তৈরি ঘরও দেখা যায়। সেখানে লেখা রয়েছে-‘বাসা ভাড়া আতঙ্ক।’

‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন’ সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা যাচ্ছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। আপনারা জানেন করোনা মহামারির এই দুর্যোগে অনেক কর্মহীন মানুষ ঘরে বসে আছে। তারা কোনো কাজ-কর্ম করতে পারছে না। যার কারণে বাড়িভাড়া দিতে তাদের অসুবিধা হচ্ছে। ইতিমধ্যে আপনারা দেখছেন দুই মাসের শিশুসহ ভাড়াটিয়াকে বাড়িওয়ালা বাড়ি ভাড়ার কারণে অমানবিকভাবে বের করে দিয়েছিল। সেখানে প্রশাসনের লোক গিয়ে ওই ভাড়াটিয়াকে বাড়িতে উঠিয়ে দিয়েছে। বাড়িওয়ালাকে গ্রেফতার করেছে। আমরা আমাদের পক্ষ থেকে প্রশাসনের কর্মকর্তাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। সেই সাথে আজকে আমাদের যে দাবি সেই দাবি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আমরা একটা স্মারকলিপি পেশ করবো। এ বিষয়ে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশ দাবি করছি।

রিপন বলেন, ‘আমাদের চাওয়া তিন মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করার জন্য এবং গ্যাস বিল, বিদ্যুৎ বিল, পানির বিলসহ ট্যাক্স মওকুফের দাবিতে সরকারি ভর্তুকি সাপেক্ষে ।

‘ভাড়াটিয়া পরিষদ’র সভাপতি মো. বাহারানে সুলতানা বাহার বলেন, তিনটি সংগঠনের পক্ষ থেকে আমি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আমাদের এই দাবি পেশ করবো।

আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি মাহমুদুল হাসান বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলছি, অনেক মানুষ কর্মহীন রয়েছেন। আমাদের নিম্ন বিত্ত, মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষ যারা রয়েছি তাদের মূল সমস্যা হলো বাড়ি ভাড়া। আমাদের আয়ের অধিকাংশ চলে যায় বাড়ি ভাড়ার মধ্যে। তাই বিশ্বব্যাপী এই ক্রান্তিলগ্নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এপ্রিল, মে, জুন এই তিন মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফের দাবি জানিয়েছি। অলরেডি এপ্রিল মাসের ভাড়া কিন্তু অনেকে নিয়ে নিয়েছে। তারপরও কিন্তু অনেকেই এই বাড়ি ভাড়া দিতে পারে নাই। বাস্তবিক বলতে গেলে, আমি এখনও এই মাসের বাড়ি ভাড়া দেই নাই। আমি আমার বাড়িওয়ালাকে আগামী মাসের কথা বলেছি। কারণ আমি ছোটখাট ব্যবসা করি, আমরা ব্যবসা বন্ধ। আমর মতো সারাদেশে ৪/৫ কোটি মানুষ আছে যারা কষ্টে আছেন। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভর্তুকি সাপেক্ষে বাড়ি ভাড়া মওকুফের দাবি জানাচ্ছি।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য