শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

বিদ্যুৎ অফিসের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বিল চাপিয়ে দেয়ার অভিযোগ জনসাধারণের



তামাদ্দুন ডেস্ক:মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল বিভিন্ন ইউনিয়নের সকল গ্রামের প্রায় বেশির ভাগ বিদ্যুৎ গ্রাহকদের বিলে দ্বিগুণ, তিনগুন বেশি বিল গ্রাহকদের কে চাপিয়ে দেয়া সহ বিল পরিশোধে নানাভাবে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে।

গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার ২৩ ও ২৪ জুন উপজেলার বিদ্যুৎ অফিসে অতিরিক্ত বিল পরিশোধ ও সমন্বয় করতে গিয়ে শত শত বিদ্যুৎ গ্রাহক করোনা দূর্যোগ কালে অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তুলেন।

গ্রাহকরা স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, বাড়ি বাড়ি না গিয়ে অফিসে বসে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল ছাপিয়ে ৩০ জুনের মধ্যে বিল পরিশোধ করতে নোটিশ দিয়েছেন প্রত্যেক বিদ্যুৎ গ্রাহকদেরকে। অপর দিকে বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ বিল সঠিক সময়ে পরিশোধের জন্য মাইকিং করছে বিদ্যুৎ অফিস। বিদ্যুৎ সংযোগ সচল রাখতে বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত বিল দিচ্ছে গ্রাহক।

বিল পরিশোধ করতে এসে বড় রায়পারা গ্রামের দুলাল মিয়া, ভবেরচর গ্রামের রেখা রানী, ইমামপুর গ্রামের ইউসুফ খান,হোসেন্দি গ্রামের রুহুল আমিনসহ ১৫ থেকে ২০ জন গ্রাহক অভিযোগে জানান গত মে মাসে দ্বীগুন, তিনগুণ বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছে।

চলিত জুন মাসে আবারও সেই পরিমাণ বিদ্যুৎ বিল বানিয়ে দিয়েছে অফিস কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। বিল পরিশোধ ও সমন্বয় করতে এসে পরছে নানা হয়রানিতে। গ্রাহকদের দাবী অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের ঘটনা সরজমিনে তদন্ত পূর্বক দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া।

বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম মোঃ ইমরান গনি জানান, বিলম্ব জরিমানা মওকুফ বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ নোটিশ গ্রাহকদের কাছে আগে আগে পৌঁছে দিতে বকেয়া বিলসহ বর্তমান বিল প্রিন্ট হয়েছে। কোন গ্রাহক মে এবং জুন মাসের দুইটি বিলের মধ্যে বেশি টাকা পরিশোধ করলে তা পরবর্তী বিলে সমন্বয় করে দেয়া হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য