শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

১০ মিনিট স্কুল ও আয়মান সাদিক সমাচার: সাদ আল মিহিক


তামাদ্দুন ২৪ ডটকম: ডিজিটাল মার্কেটিং কিংবা বিজ্ঞাপনী সংস্থার সাথে যারা সংযুক্ত আছেন, ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং তাদের কাছে একটি পরিচিত নাম। ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং খুবই পুরোনো ও কার্যকরি একটি মার্কেটিং টুলস। এর মাধ্যেমে নির্দিষ্ট অডিয়েন্সকে খুব সহজেই একটি সার্ভিসের ব্যাপারে ইন্টারেস্টেড করা যায়। যা কখনো কখনো অনন্য মার্কেটিং টুলসের চাইতেও বেশি কার্যকরী হয়।
.
আগে জেনে নিই: ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং কী?

-সোজা কথায়: কোন সেলিব্রেটিকে দিয়ে আপনার পণ্যে বা সার্ভিসের প্রচারনা করে তার অনুসারীদের আপনার সার্ভিসের প্রতি আগ্রহী করে তোলার নামই হলো ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং।

ব্যাপারটা ক্লিয়ার করি: লাক্সের বিজ্ঞাপনে দীপিকার সুন্দরী হওয়ার এডভাইসের দৃশ্যটা আপনাদের মনে আছে?

হেড এন্ড শোল্ডারের বিজ্ঞাপনে খুশকি মুক্ত চুলে দাড়ানো ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সেই লুক?

অথবা ফেয়ার এন্ড লাভলী ম্যান ব্যবহার করে ফর্সা হওয়া শাহরুখ খান?

-এখানে দীপিকা, রোনালদো, শাহরুখ হলো ইনফ্লুয়েন্সার। আর তারা যে পন্যের প্রচারনা চালিয়ে অনুসারীদের আগ্রহী করে তুলছে এটাই হলো মার্কেটিং।

-এখানে একটা ব্যাপার খেয়াল রাখবেন: এই ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং খুবই স্ট্রং একটা টুলস। এর মাধ্যেমে শুধু পণ্য বা সার্ভিসের প্রচারনাই হয়না। মানুষের কাছে পৌছানো প্রয়োজন" এমন প্রতিটা প্রোডাক্ট, সার্ভিস, বা কনটেন্ট ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং করে সহজে নির্দিষ্ট অডিয়েন্সের কাছে পৌছানো যায়। কারন ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিংয়েই মানুষের মধ্যে সেলিব্রেটি ওরশীপ কাজ করে। পছন্দের সেলিব্রেটির লাইফ স্টাইলকেও তারা নিজেদের ব্যক্তি জীবনে প্রয়োগের চেস্টা করে।

কেন এতো কিছু বললাম?

১০ মিনিট স্কুলের শামির, সাকিব, সমকাম প্রমোট করলেন। এই ব্যাপারে ১০ মিনিটের উদ্দ্যেক্তা আয়মান সাদিক বললেন: এটা তাদের পার্সোনাল লাইফ। এর দায় ১০ মিনিট স্কুলের উপর বর্তায় না।

ভালো কথা। কিন্তু শামির, আর সাকিবদের অডিয়েন্স বা ফলোয়ার কারা?

১০ মিনিট স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা।

শামির আর সাকিবদের আমরা চিনি কিভাবে?

১০ মিনিট স্কুলের টিচার হিসেবে। যারা আমাদের বাচ্চাদের পড়াশোনা ও নৈতিকতা শিক্ষা দেয়।

তো শামির, সাকিবদের এই সমকামী প্রচারনায় কারা প্ররোচিত হবে?

আমাদের বাচ্চারা। ভাই-বোনেরা।

গার্ডিয়ান হিসেবে এর নিকৃষ্ট পাপাচারে প্ররোচিত হওয়ার হাত থেকে আমরা অবশ্যই আমাদের বাচ্চাদের রক্ষা করতে চেস্টা করবো। আমরা চাইবো আমাদের বাচ্চারা সুস্থ-স্বাভাবিক জীবনে অভ্যস্থ হোক। ঘৃণিত ও পাপাচার থেকে দূরে থাকুক।

এর জন্য আমরা ব্যবস্থা নিবো কার বিরুদ্ধে?

অবশ্যই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। আর এই প্রতিষ্ঠান হলো ১০ মিনিট স্কুল।

এই সহজ ব্যাপারটা কেন আয়মান সাদিক বুঝছেনা। এই সহজ ব্যাপারটাই ক্যানো পায়ুসেনারা সিরিয়াসলি নিচ্ছেনা? আয়মান সাদিকের মতো একজন উচ্চ-শিক্ষিত মানুষ অবশ্যই জানার কথা এই দায় তার প্রতিষ্ঠানের। এবং তিনি যদি হিপোক্রেট না হোন, তাহলে অবশ্যই শামির-সাকিবদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া তার দায়িত্ব। প্রতিষ্ঠানের রেপুটেশন রক্ষা করা তার কর্তব্য। কিন্তু তিনি তা করলেন না। তিনি উল্টো "ব্যক্তিগত" বলে যাস্ট একটা ফর্মালিটি পালন করে গেলেন।

কিন্তু হ্যা। এর মানে এই না, আমরা আয়মান সাদিকদের মেরে ফেলার হুমকি দিবো। (যদিও অনেকে ব্যাপারটা রিভার্স গেইম বলছেন)। কিংবা ১০ মিনিট স্কুল বন্ধ করে দিবো। ১০ মিনিট স্কুলের মতো প্লাটফর্ম প্রয়োজন আছে।

আমরা আয়মান সাদিকদের শ্রদ্ধা করি। যেমনটা আমরা বিশ্বাস করি, ১০ মিনিট স্কুল আমাদের বাচ্চাদের স্কিল ডেভেলপ করতে সাহায্যকারী ভূমিকা পালন করছে। আমরা চাই আয়মান সাদিক তার প্রতিষ্ঠান এগিয়ে নিয়ে যাক। কিন্তু সেটা শামির - সাকিবদের বাদ দিয়ে। আমরা চাইনা আমাদের বাচ্চারা পড়াশোনার পাশাপাশি বিকৃত শিক্ষায় ধাবিত হোক। বিকৃত মতবাদে অভ্যস্থ হোক। কিংবা কোন কুচক্রী মহলের নীল নকশার শিকার হোক। আয়মান সাদিকদেরও এই ব্যাপারটা মাথায় রাখা উচিত।

লেখক: জেলা প্রতিনিধি:তামাদ্দুন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য