শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের আত্মপ্রকাশ: অবিলম্বে কওমী অঙ্গনে চলমান সংকট সমাধানের দাবী

তামাদ্দুন নিউজ:- কওমী মাদ্রাসার সর্বোচ্চ শিক্ষা বোর্ড বেফাক ও হাইয়াতুল উলিয়ার চলমান সংকট, অচলাবস্থা, স্বেচ্ছাচারিতা ও সকল ধরণের অনিয়মের বিরুদ্ধে কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণপরিষদের উদ্যোগে আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে বিকাল ৩টায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় কওমী সংকট সমাধানের দাবী জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে কওমী উলামাদের গর্বের জায়গা বেফাক সম্পর্কে যে সকল অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে তা অতিসত্ত্বর তদন্ত সাপেক্ষে সঠিক বিষয়টি জাতির সামনে উপস্থাপন করতে হবে। বেফাক এবং হাইয়াতুল উলয়াতে সকল প্রকার একক সিদ্ধান্ত গ্রহনের অপসংস্কৃতি বন্ধ করে শুরা ভিত্তিক সকল সিদ্ধান্ত গ্রহনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। বেফাক এর সকল প্রকার পরিচালনা কমিটি আমেলা ও শুরা মিটিং ডেকে নতুন করে গঠন করতে হবে। এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের যথাযথ নিয়োগ বিধি অনুসরণ করে নিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। যার যার দায়িত্ব সঠিক ভাবে পরিচালনার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। বেফাক এর সকল প্রকার আর্থিক লেন-দেন, পরীক্ষা পরিচালনা কার্যক্রমকে দূর্নীতি ও অনিয়মমুক্ত করতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। অবিলম্বে কওমী অঙ্গনের সকল প্রতিষ্ঠান থেকে দুর্নীতিবাজ ও দালালচক্র, পদলোভী, অযোগ্যদের অপসারণ এবং এসব স্থানে তাকওয়া ভিত্তিক আমানতদারিতা ও দায়িত্বশীলতা নিশ্চিত করতে যোগ্য, মেধাবী, সৎ, বিশ্বস্ত, মুত্তাকী আলেমগণের যথাযথ সম্মান ও নিরাপত্তা দিয়ে বেফাক, হাইয়াতুল উলয়াসহ সকল ক্ষেত্রে দায়িত্ব দিতে হবে। অবিলম্বে আমেলা ও সুরা ডেকে সকলের মতামত এবং আস্তার ভিত্তিতে উক্ত দাবীসমূহ বাস্তবায়ন করতে হবে। অন্যথায় কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণে এদেশের আলেম-উলামা ও ছাত্রজনতাকে সাথে নিয়ে রাজপথে নামতেবাধ্য হবো।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত চ্যালেঞ্জার মুখে কওমী ঐতিহ্য ও আমাদের করণীয় শীর্ষক সেমিনারে ওলামায়ে কেরাম ও শুধীগণ এসব কথা বলেন।

সংগঠনের আহবায়ক মাওলানা মুসা বিন ইজহার এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, নেজামে ইসলাম পার্টির নাযয়বে আমীর মাওলানা আব্দুল মাজেদ আতহারী, খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, নেজামে ইসলাম পার্টি ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা আবু তাহের খান, কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের সাধারন সম্পাদক মাওলানা এবি এম শরিফুল্লাহ, নায়েবে আমীর মাওলানা আজীজুল হক শেখ সাদী, মাওলানা আজহারুল হক আজমী, মাওলানা সৈয়দ শামসুল হুদা, মাওলানা জুবাইর গনী, মাওলানা ওমর ফারুক যুক্তিবাদী, এডভোকেট রফিকুল ইসাম প্রমূখ। আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন, কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক মুফতি সুলতান মুহিউদ্দিন।

সভায় সভাপতির ভাষনে মাওলানা মুসা বিন ইজহার বলেন, কওমী ঐতিহ্য বিনাশী যে কোন তৎপরতা এদেশের সচেতন আলেম সমাজ বরদাশত করবে না। বেফাক আজ কতিপয় ব্যক্তির অবহেলা, খামখেয়ালী, দায়িত্বহীনতা, স্বেচ্ছাচারিতা, দুর্নীতি, দায়িত্বহীনতা, ও জবাবদিহিতাবিহীন এক পূঁতিদুর্গন্ধময় প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে ।

সচেতন কওমী প্রজন্ম হিসেবে আমাদের এ সকল বিষয়ে নীরব থাকার কোন সুযোগ নেই। তবে অপরিনাম দর্শী সমাচোলনার যে ধারা শুরু হয়েছে তা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া উচিত। এদেশের সকল কওমী সন্তানদের স্বার্থেই এই অরাজকতার বিরুদ্ধে কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তোলা সময়ের অপরিহার্য দাবী। তিনি বেফাককে যথা যথ ভাবে শক্তিশালী করতে কতিপয় দুর্নীতিবাজ ও অযোগ্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনেবাধ্য করতে সকলকে সোচ্চার ও সজাগ করার আহবান জানান।

সভায় নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, কওমী উলামাদের এক বৃহৎ প্লাটফরম হেফাজতে ইসলাম, দেশের শীর্ষ বিদ্যাপিট, উম্মুল মাদারিস দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী, নাজির হাট বড় মাদ্রাসাসহ কওমী প্রজন্মের আবেগ ও ভালোবাসার সাথে সংশ্লিষ্ট পেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতির দুঃখজনক ও লজ্জাজনক নানাবিধ সংবাদ ও তৎপরতা দৃশ্যমান হচ্ছে। যার বিরুদ্ধ আমাদের প্রতিবাদ, নিন্দা জানানোর ভাষা নেই।

সভায় মাওলানা মুসা বিন ইজহারকে সভাপতি ও মাওলানা শরিফুল্লাহকে সাধারন সম্পাদক করে কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দীয় কমিটি গঠন করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য