শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

কুমিল্লায় আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) এর স্মরণসভা অনুষ্ঠিত: তামাদ্দুন ২৪ ডটকম




ইবনে সাবিল: তামাদ্দুন ২৪ ডটকম: আজ ৪ অক্টোবর ২০২০ রোজ রবিবার সকাল ১০ টা থেকে কুমিল্লা জেলা কওমী মাদরাসা সংগঠনের উদ্যোগে সংগঠনের কার্যালয় জামিয়া আরাবিয়া কাসেমুল উলূম মাদরাসায় সংগঠনের সভাপতি মাওলানা নূরুল হকের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী মাওলানা আব্দুল কুদ্দুসের সঞ্চালনায় বেফাকের সাবেক সভাপতি, হাটহাজারী মাদরাসার প্রাক্তন মুহতামিম ও হেফাজতে ইসলামীর প্রয়াত আমির ‘আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) এর জন্য দুআর আয়োজন করা হয়। একই সাথে অসহায় আলেমদের কর্মসংস্থান তৈরি করতে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন জামিয়া আরাবিয়া কাসেমুল উলূম কুমিল্লার মুহতামিম মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, রানির বাজার মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মুনীরুল ইসলাম, মাওলানা ওয়ালী উল্লাহ, মাওলানা মুনীরুল ইসলাম, মাওলানা ইয়াকুব, মাওলানা আবুল হাসান রাজাপুরী, মাওলানা মিজানুর রহমান, মাওলানা জামীল আহমদ, মাওলানা আমীনুল ইসলাম, মাওলানা ফরীদ আহমদ সহ আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) এর অসংখ্য খলিফা ও ভক্তবৃন্দ৷

বক্তারা আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) এর স্মৃতিচারণ করে বলেন, আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) ছিলেন এ জাতির রাহবার৷ তিনি সর্বদা এ জাতিকে সত্য ও ন্যয়ের পথ দেখিয়ে গেছেন৷ তিনি সর্বজন স্বীকৃত সর্বোচ্চ সম্মানিত ব্যক্তি ছিলেন৷ যেমন একজন বিদগ্ধ আলেম ছিলেন, তেমনি একজন বিপ্লবী নেতাও ছিলেন৷ হাদীসের মসনদে ছিলেন একজন শাইখুল হাদীস আর রাজপথে ছিলেন একজন বীর সৈনিক৷ তাঁর হুংকারে এদেশের বহু জালেম ও নাস্তিকরা প্রকম্পিত হয়ে নিস্তেজ হয়ে গিয়েছে৷ তিনি ছিলেন এই সমাজের একজন সংস্কারক৷ তাঁর হাতে গড়া লক্ষ লক্ষ ছাত্র এদেশের গ্রামগঞ্জে ছড়িয়ে রয়েছে, যাদের দুর্নীতি ও জুলুম অত্যাচারের কোন রেকর্ড নেই৷

তিনি যেমন ছিলেন একজন পীরে কামেল, তেমনি ছিলেন একজন সফল সংগঠক৷ তিনি ব্রিটিশ খেদাও আন্দোলনের অন্যতম বীর মাওলানা হুসাইন আহমদ মাদানীর শাগরীদ এবং খলিফা ছিলেন৷ তিনি এদেশের সকল আলেম কে একত্রিত করে ঐক্যের ফ্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে সক্ষম হয়ে ছিলেন৷ জুলুম অত্যাচার ও নাস্তিকতার বিরুদ্ধে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ নামক সংগঠনের আবিষ্কার করেছিলেন৷ তাঁর জীবদ্দশায় তিনি বেফাক, হাইআতুল উলয়া, হাটহাজারী মাদরাসা ও হেফাজতে ইসলাম সহ বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য সংগঠনের সর্বোচ্চ দায়িত্বশীল ছিলেন৷
বিগত ১৮ সেপ্টেম্বরে তিনি তাঁর পরিবার-পরিজন, লক্ষ লক্ষ ছাত্র, অসংখ্য খোলাফা ও ভক্তবৃন্দ রেখে ইন্তেকাল করেন৷ এমন ব্যক্তিত্বরা ক্ষণজন্মা হয়ে থাকেন, তাই তাঁর এই বিয়োগের শূন্যতা হয়তো অপূরণীয় হয়েই থেকে যাবে৷

বক্তারা তাঁর রেখে যাওয়া আদর্শ ও প্রতিষ্ঠানগুলোকে এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন এবং প্রশাসনের প্রতি কাদিয়ানীদের অবিলম্বে অমুসলিম ঘোষণা করার জোর দাবি জানান৷

সভা শেষে আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) এর মাগফিরাত ও রফয়ে দারাজাত কামনায় এক বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়৷ মোনাজাত পরিচালনা করেন সংগঠনের সভাপতি মাওলানা নূরুল হক৷

সভায় কুমিল্লা জেলার অসহায় আলেম ও দ্বীনদ্বার পরিবারের মাঝে ৫১ টি সেলাই মেশিন বিতরণের মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি করার সহযোগিতা প্রদান করা হয়৷


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য