শিরোনাম

[getTicker results="10" label="random" type="ticker"]

ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করুন: জমিয়ত


ইবনে সাবিল-তামাদ্দুন:- এসএসসি পরীক্ষায় ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়েছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব ও হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নবনির্বাচিত সহকারী মহাসচিব শায়খুল হাদীস হযরত মাওলানা গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম।

তিনি ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান।

তিনি আরো বলেন, পাকিস্তান আমল থেকে এসএসসিতে ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পরীক্ষা চলে এসেছে। আজ নৈতিকতার অভাবে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ধর্ষণ, খুন ও সন্ত্রাসসহ বিভিন্ন অপকর্ম সংগঠিত হচ্ছে এথেকে পরিত্রাণের জন্য ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। পাবলিক পরীক্ষা থেকে ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্তের কারণে এই শিক্ষার গুরুত্ব ছাত্রদের কাছে আর থাকবে না। আমি মনে করি ইসলামশূন্য করার চক্রান্ত হিসেবেই মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশে চরম ইসলাম বিদ্বেষী এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গতকাল ৩০ নভেম্বর, রোজ সোমবার, বিকাল ৪টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে নগর সভাপতি নিজাম উদ্দিন আল আদনানের সভাপতিত্বে এসএসসিতে ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পরীক্ষা বাতিলের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বক্তব্য রাখেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি রেজাউল করিম,জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা বেলায়েত হোসাইন আল ফিরোজী, ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের সভাপতি জনাব সুহাইল আহমদ, মোশাররফ হোসাইন,আবু হানিফ ও আরাফাত প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা আরো বলেন, এসএসসিতে ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পরীক্ষা ছিল, আছে এবং থাকবে। এটাই এদেশের জনগণের সিদ্ধান্ত। যদি সরকার তার এহেন সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করে,তাহলে সারাদেশে তৌহিদী জনতা দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে। ইনশাআল্লাহ।

বার্তা প্রেরক
হাসান মোহাম্মদ শহীদ
প্রচার সম্পাদক

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য